ছাত্রলীগের নতুন কমিটি নিয়ে ঈশ্বরগঞ্জে তোলপাড়!

ছাত্রলীগের নতুন কমিটি নিয়ে ঈশ্বরগঞ্জে তোলপাড়!

ঈশ্বরগঞ্জ প্রতিনিধি: শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে তিন মাসের মাথায় ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগ। এতে পূর্বের কমিটির সহ-সভাপতি শেখ ওয়ালি উল্লাহ রাসেলকে সভাপতি এবং পূর্বের কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আল ইমরান গণি ভূইয়া হীরাকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। নতুন কমিটির অনুমোদনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আল আমিন।

গত ৪ ডিসেম্বর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আল আমিন এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন অলির স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে নতুন কমিটির অনুমোদন হয়। তবে এ তথ্য প্রকাশিত হয় গতকাল মঙ্গলবার ৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যার পর।

এদিকে গত ক’দিন ধরেই ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের প্রোপাগান্ডা এবং অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি মহল। এ অবস্থায় ৩ মাসের মাথায় ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির অনুমোদন দেন ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ। এ তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পরই শুরু হয় ব্যাপক আলোচনা-সমালোনার ঝড়। পূর্বের নাকি নতুন কমিটি বৈধ এ নিয়ে প্রশ্ন তুলে উপজেলাসহ তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর নতুন কমিটি প্রকাশ হওয়ার পর ওই কমিটিকে ভুয়া দাবি করে গত (৫ ডিসেম্বর) তারিখের কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি নিজেদের ফেসবুক আইডি থেকে প্রকাশ করেন সদ্য বিলুপ্ত হওয়া কমিটির সভাপতি হাসান মাহমুদ এবং সাধারণ সম্পাদক রানা আহমেদ। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ রয়েছে, কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন অলিকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এ ছাড়াও গত ৪ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগ কর্তৃক যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে সেটি অবৈধ এবং এর কোন বৈধতা নেই। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বহাল থাকবে। তবে এ বিজ্ঞপ্তি ভুয়া বলে দাবি করছেন নতুন কমিটির সভাপতি-সম্পাদকসহ অন্যরা।

জানা যায়, নতুন কমিটিতে ৩ জন সহসভাপতি পদে আছেন এমএ খালেক ভূইয়া, অর্ণব হোম চোধুরী ও মাহমুদুল হাসান রাকিন। দু’জন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন এ এস এম আনোয়ার হোসেন, হাবীবুর রহমান অসীম। এ ছাড়াও সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আছেন ফয়সাল খান ও শাহীন রৌদ্র।

এদিকে একই তারিখে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আল আমিন এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন অলির স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ঈশ্বরগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের নতুন কমিটির ঘোষণা করা হয়। এতে মো.আল মাসুমকে সভাপতি এবং মো. আহসানুল হক সামিকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

উপজেলা ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, গত ( ০৪ সেপ্টেম্বর) হাসান মাহমুদকে সভাপতি ও রানা আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটির অনুমোদন দেন ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আল আমিন এবং সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবীর।

ওই কমিটি প্রকাশের পরপরই অনিয়মের অভিযোগে হুমায়ুন কবীরকে কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের যৌথ স্বাক্ষরে অব্যাহতি প্রদান করেন। পরে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয় ১ নম্বর যু্গ্ম সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন অলিকে। এ অবস্থায় গত (৫ ডিসেম্বর) হুমায়ুন কবীরের অব্যাহতি আদেশ প্রত্যাহার করে তাঁকে স্ব-পদে পুনর্বহাল করেন কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি- সম্পাদক।

নবগঠিত কমিটির সভাপতি শেখ ওয়ালি উল্লাহ রাসেল বলেন, কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদকের স্বাক্ষর জালিয়াতি করে তারা যে বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ করেছে, সেটা সম্পূর্ণ ভুয়া। এ বিষয়ে কেন্দ্রিয় এবং জেলার নেতৃবৃন্দ অবগত নন।

এ বিষয়ে পূর্বের কমিটির সাধারণ সম্পাদক রানা আহমেদ বলেন, কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক
ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছিল ঠিকই, কিন্তু কোন কমিটি স্থগিত কিংবা অনুমোদনের অনুমতি দেননি। সুতরাং যে কমিটি হয়েছে তা অবৈধ। অবৈধ কমিটি হওয়ার কারণেই ৪ তারিখের স্বাক্ষর হওয়া কমিটি ৬ তারিখ প্রকাশ করেছে তারা । তাদের এই কমিটিকে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে অবৈধ ঘোষণা করে, আমাদের কমিটিকে পুনর্বহাল করেছেন কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সম্পাদক’।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. আল আমিন বলেন, ‘ শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করে, সংগঠনের কার্যক্রমকে গতিশীল করার লক্ষ্যে নতুন কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে’। তবে কেন্দ্রিয় কমিটির স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে পূর্বের কমিটির পুনর্বহালের বিষয়ে অবগত নন বলে জানান আল আমিন’।

Leave a Reply

Your email address will not be published.